আবুল হাসনাতের ৭৬তম জন্মবার্ষিকীতে স্মরণ করি শ্রদ্ধায়

আজ বেঙ্গল পাবলিকেশনসের নির্বাহী পরিচালক এবং সাহিত্য শিল্প ও সংস্কৃতি বিষয়ক মাসিক পত্রিকা ‘কালি ও কলমে’র প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক আবুল হাসনাতের ৭৭তম জন্মদিন। তিনি ১৯৪৫ সালের ১৭ জুলাই পুরান ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর কবিনাম মাহমুদ আল জামান।
কবিতা, উপন্যাস, চিত্র-সমালোচনাসহ সাহিত্যের নানা বিভাগে পদচ্ছাপ রেখেছেন আবুল হাসনাত। তবে তিনি সর্বাধিক পরিচিতি লাভ করেছেন একজন বিচক্ষণ ও সংবেদনশীল সাহিত্য সম্পাদক হিসেবে। তাঁর অমর কীর্তির জন্য তিনি শুধু এদেশেই নন, পশ্চিমবঙ্গসহ সকল বাংলা ভাষাভাষী সাহিত্যানুরাগীর কাছে পরম শ্রদ্ধেয়।
দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে তাঁর সম্পাদনাগুণে দৈনিক ‘সংবাদে’র সাহিত্য সাময়িকী হয়ে উঠেছিল বাংলাদেশের শিল্প-সাহিত্যের দর্পণ।জীবনাবসানের পূর্ব পর্যন্ত তিনি সাহিত্যপত্রিকা ‘কালি ও কলমে’র সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। একই সঙ্গে চিত্রকলা বিষয়ক ত্রৈমাসিক ‘শিল্প ও শিল্পী’রও সম্পাদক ছিলেন তিনি।
আবুল হাসনাতের প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের মধ্যে রয়েছে ‘জ্যোৎস্না ও দুর্বিপাক’, ‘কোনো একদিন ভুবনডাঙায়’, ‘ভুবনডাঙার মেঘ ও নধর কালো বেড়াল’ এবং তাঁর মৃত্যুর পর বেরিয়েছে প্রকাশিত-অপ্রকাশিত কবিতার সংকলন ‘কবিতাসমগ্র’। এছাড়া ‘সতীনাথ’, ‘মানিক’, ‘রবিশঙ্কর ও অন্যান্য’, ‘জয়নুল, কামরুল, সফিউদ্দীন ও অন্যান্য’ প্রভৃতি তাঁর উল্লেখনীয় প্রবন্ধগ্রন্থ। শিশু ও কিশোরদের জন্য তিনি লিখেছেন ‘ইস্টিমার সিটি দিয়ে যায়’, ‘টুকু ও সমুদ্রের গল্প’, ‘যুদ্ধদিনের ধূসর দুপুরে’, ‘রানুর দুঃখ-ভালোবাসা’ গ্রন্ধ।
আবুল হাসনাত ১৯৮২ সালে ‘টুকু ও সমুদ্রের গল্পে’র জন্য পান ‘অগ্রণী ব্যাংক শিশু সাহিত্য পুরস্কার’। ২০১৪ সালে তাঁকে বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ প্রদান করে।
তাঁর স্মৃতিকথাময় গ্রন্থ ‘প্রত্যয়ী স্মৃতি ও অন্যান্য’ অর্জন করেছে মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার।
২০২০ সালের ১ নভেম্বর ৭৫ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন এই বরেণ্য ব্যক্তিত্ব।

Enter your keyword