Projecting a culturally rich Bangladesh to a global audience

Contact Us

চিত্রশিল্পী কাইয়ুম চৌধুরীর চতুরশীতিতম জন্মবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

আগামী ৯ মার্চ চিত্রশিল্পী কাইয়ুম চৌধুরীর চতুরশীতিতম জন্মবার্ষিকী। তিনি ছিলেন সাহিত্য, শিল্প ও সংস্কৃতি বিষয়ক মাসিক সাহিত্য পত্রিকা কালি ও কলমের শিল্প নির্দেশক, চিত্রকলা বিষয়ক ষান্মাসিক শিল্প ও শিল্পীর সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের সুহৃদ।
কাইয়ুম চৌধুরী দীর্ঘ ষাট বছরের চিত্র-সাধনা ও চর্চার মধ্য দিয়ে স্বাতন্ত্র্যে উজ্জ্বল এক শৈলী নির্মাণ এবং বিষয়ের গুণে নিজস্ব ভুবন সৃষ্টি করতে সমর্থ হয়েছিলেন। এই সৃজনে ধরা আছে বাংলা ও বাঙালির সংগ্রাম, মানুষের মর্মযাতনা, দুঃখকষ্ট এবং ঐতিহ্যিক প্রবাহ। কাইয়ুম চৌধুরীই বাংলাদেশের প্রথম প্রজন্মের শিল্পী, যাঁর চিত্রপটে কোনো ধরনের বিমূর্তায়নের ছায়া নেই বা নির্বস্তুক বিষয় নিয়ে যিনি ছবি আঁকেননি। তাঁর চিত্রচর্চা, জীবনদৃষ্টি ও সমাজের প্রতি অঙ্গীকার তাঁকে একজন প্রখর সমাজসচেতন শিল্পী করে তুলেছিল। সেই জন্যই বোধকরি বাস্তবধারায় ছবি অঙ্কনে তিনি প্রধান শিল্পী হয়ে উঠেছিলেন।  
তিনি কতভাবে যে তাঁর পটে ঐতিহ্যিক ভাবনাকে আধুনিক বোধ ও ভাবনায় পুনর্নির্মাণ করেছেন, তা বলে শেষ করা যায় না। এই ঐতিহ্যিক প্রবাহে নিমজ্জিত হয়ে বাংলাদেশের লোকশিল্পের নানা অনুষঙ্গ থেকে পরিগ্রহণ করেছিলেন তিনি। তিনি বাংলার এই লোকশিল্পের মধ্যে সৃজনের সমৃদ্ধ ভাবানুষঙ্গ প্রত্যক্ষ করেছিলেন। এই বিষয়কেই তিনি আধুনিক বোধে ও নিজস্ব শৈলীতে পুনর্নির্মাণ করেছেন। এক্ষেত্রে শিল্পীর যে জিজ্ঞাসা ও দেশভাবনার প্রকাশ আছে তা নবীন প্রজন্মকে শিল্প-সৃজনে প্রাণিত করবে বলে আমাদের বিশ্বাস।
তিনি ২০১৪ সালের ৩০ নভেম্বর বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের মঞ্চে আকস্মিক মৃত্যুবরণ করেন।
বেঙ্গল ফাউন্ডেশন তাঁর চতুরশীতিতম জন্মবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন এবং তাঁর সকল কীর্তিকে স্মরণ করছে। এছাড়া তাঁর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বেঙ্গল পাবলিকেশন্‌স থেকে কাইয়ুম চৌধুরী স্মারকগ্রন্থ প্রকাশ হতে যাচ্ছে।